Omega-3 Fatty Acid: শরীরে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের ভূমিকা সম্পর্কে জানেন?

সিরিয়ালের জন্য যোগাযোগ করুন -

Omega-3 Fatty Acid: শরীরে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের ভূমিকা সম্পর্কে জানেন?

Omega-3 Fatty Acid

 

আমরা যে সব স্বাস্থ্যকর খাদ্য গ্রহণ করি তার মধ্যে বেশির ভাগ খাদ্যেই থাকে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড। এমনকি মাছের তেলের মধ্যে রয়েছে এই উপাদানটি। শরীরে এই উপাদানটির অভাব থাকলে দেখা দেয় একাধিক রোগ, তাই সাপ্লিমেন্টও উপলব্ধ ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের। কিন্তু কেন! আমাদের শরীরে এই ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড কী প্রভাব ফেলে জানেন?

ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড মূলত তিন রকমের হয়, যথা- এএলএ (ALA), ইপিএ (EPA) এবং ডিএইচএ (DHA)। এই ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড। ফ্লাক্স সিড, মাছের তেল, বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছ, বাদাম এবং আরও খাবারের মধ্যে পাওয়া যায়।

১) দূর করে মানসিক অবসাদ- ডিপ্রেশন, অ্যানজাইটি বিশ্বের সবচেয়ে সাধারণ একটি মানসিক রোগ। ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড এই মানসিক রোগের ওপর দারুণ প্রভাব ফেলে এবং এই মানসিক অবসাদের সমস্যাকে দূর করে। তার সঙ্গে উন্নত করে মানসিক স্বাস্থ্য। ইপিএ (EPA) মূলত ডিপ্রেশনের সঙ্গে লড়াই করতে সক্ষম।

২) চোখের স্বাস্থ্য উন্নত করে- ডিএইচএ নামে একটি ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড আপনার চোখের রেটিনার একটি প্রধান কাঠামোগত উপাদান। দৃষ্টিশক্তির দুর্বলতা এবং অন্ধ হওয়ার জন্য দায়ী ম্যাকুলার ডিজেনারেশনকে এটি প্রতিরোধ করতে সহায়তা করতে পারে।

৩) ভ্রূণের মস্তিষ্কে বিকাশে সক্ষম- গর্ভা‌বস্থায় শিশুর মস্তিষ্কের বিকাশে সাহায্য করে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড। অস্টিজম সহ একাধিক রোগকে প্রতিরোধ করতে সক্ষম এই ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড। তার সঙ্গে শিশু অবস্থাতেও মস্তিষ্কের বিকাশে এবং শিশুর বুদ্ধির বিকাশ ঘটাতে সহায়ক ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড।

৪) হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়- ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড ট্রাইগ্লিসারাইড ও এলডিএল কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। এইচডিএলের মাত্রা বৃদ্ধি করে। রক্তচাপকে নিয়ন্ত্রণে রাখে এবং রক্ত জমাট বাঁধতে দেয় না। এই সব কারণে হ্রাস পায় হৃদরোগের ঝুঁকিও। সুতরাং হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড সমৃদ্ধ খাবার খান।

৫) ক্যান্সার প্রতিরোধে সক্ষম- গবেষণায় দেখা গিয়েছে যে সব মানুষের মধ্যে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের মাত্রা বেশি তাদের মধ্যে ৫৫% কোলন ক্যান্সারের আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি কম। এছাড়াও এই ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড উপাদানটি প্রস্টেট ও স্তন ক্যান্সারের মত রোগের ঝুঁকি কমাতেও সাহায্য করে।

৬) আস্থমার প্রতিরোধ করে- বিশেষত শিশুদের মধ্যে আস্থমার উপসর্গ এবং এই রোগকে পুরোপুরি দূর করতে এবং প্রতিরোধ করতে সক্ষম ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড। তার সঙ্গে প্রাপ্তবয়ঃস্কদের মধ্যেও আস্থমার উপসর্গকে দূর করতে সহায়ক ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিড।

৭) প্রদাহ বিরোধী বৈশিষ্ট্য- ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের মধ্যে অ্যান্টি ইনফ্লেমটরি বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা শরীরকে যে কোনও ধরনের সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করে এবং শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে তোলে।

Omega-3 Fatty Acid: শরীরে ওমেগা-৩ ফ্যাটি অ্যাসিডের ভূমিকা সম্পর্কে জানেন?

পণ্যটি কিনতে নি‌চের লিঙ্কে ক্লিক করুন

Tags: No tags

Add a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *